1. admin@amardeshpbd.com : amardesh :
  2. sumarubelp@gmail.com : suma :
লালমনিরহাটে এক আঙ্গিনায় মসজিদ- মন্দির সম্প্রীতির তীর্থস্থানে মহাষষ্ঠির মধ্য দিয়ে দুর্গোৎসব শুরু - আমার দেশ প্রতিদিন
December 3, 2022, 12:19 pm
ব্রেকিং নিউজ:
পাইকগাছা উপজেলা সাংস্কৃতিক জোটের সমন্বয়ক কমিটি ঘোষনা চুনারুঘাটের গ্রাম্য মোড়ল দ্বারা সমাজচ্যুত হামিদা বেগম ৫ জন কে আসামী করে থানায় অভিযোগ দায়ের রাজশাহীতে বিএনপির গণসমাবেশ; পথে পথে পুলিশের বাধা রাজস্থলী ও বাঙ্গালহালিয়াতে সেনাবাহিনীর উদ্যোগে পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বর্ষপূর্তি উদযাপন জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের ২৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে জিয়া রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা কারামুক্ত হলেন আলোচিত আব্বাস আলী বিএমএসএস সিলেট বিভাগীয় সম্মেলন ৩রা ডিসেম্বর সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন দেশবাংলার রাজশাহী বিভাগীয় প্রধানকে হুমকি, ১০১ সাংবাদিকের বিবৃতি একাধিক এ প্লাস পাওয়ায় কাশিনাথপুর কামরুজ্জামান ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের আনন্দ শোভাযাত্রা নেইমার বিশ্বকাপ খেলবে তিতে

লালমনিরহাটে এক আঙ্গিনায় মসজিদ- মন্দির সম্প্রীতির তীর্থস্থানে মহাষষ্ঠির মধ্য দিয়ে দুর্গোৎসব শুরু

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, অক্টোবর ২, ২০২২,
  • 65 Time View

এস,আর শরিফুল ইসলাম রতন, লালমনিরহাট।

বছর ঘুরে সাদা মেঘের ভেলায় চড়ে বাঙালী সনাতন ধর্মালম্বীদের দুয়ারে কড়া নাড়ছে শারদীয় দুর্গাৎসব। দূর্গতিনাশিনী মা দূর্গার ধরাধামে প্রত্যাবর্তনে প্রস্তুত বাঙালি সনাতন ধর্মালম্বীরা।শনিবার সকালে সায়ংকালে দেবী মায়ের অকাল বোধন,আমন্ত্রন ও অধিবাসের মধ্যদিয়ে শুভ সূচনা হয় এ বছরের শারদীয় দুর্গাৎসবের।অশুভ শক্তির বিনাশ এবং সত্য ও সুন্দরের আরাধনা এবছর দূর্গাৎসবের প্রধান বৈশিষ্ট।বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে ০৫অক্টোবর বুধবার দেবী বিসর্জন এর মধ্য দিয়ে শেষ হবে দূর্গাৎসবের।

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির তীর্থ স্থান খ্যাত লালমনিরহাট জেলা শহড়ের পুরান বাজারে অবস্থিত একই আঙ্গিনায় মসজিদ ও কালিবাড়ী দুর্গামন্দির।প্রতি বছরের ন্যায় এবারো মহাষষ্ঠি পূজার মধ্যদিয়ে শুরু হচ্ছে শারদীয় দুর্গাৎসব।নিয়ম মাফিক মসজিদে আযান হচ্ছে জামাতে পাঁচওয়াক্ত নামায আদায় করছেন মুসল্লীরা,অন্যদিকে একি উঠোনেই চলছে দুর্গা পুজার সকল রীতি নীতি, দেবী দর্শনে ভক্তদের ভিড়ে মসজিদের বারান্দা অবধি মানুষের কোলাহল চলছে গভীর রাত অবধি।ঢাক, ঢোল কাঁসা,শঙ্খের আওয়াজে পুরো প্রাঙ্গন মুখরিত।দুর থেকে দেবী দর্শনে আসা কোন পূন্যার্থী বুঝতেই পারবে না তিনি মসজিদের বারান্দায় দাঁড়িয়ে।যেখানে দুর্গা পুজার আড়তি অনুষ্ঠিত হয় সেখানেই মৃত ব্যাক্তির জানাজা পড়ানো হয় বছর জুড়ে।

সম্প্রীতির এমন মেলবন্ধন বাংলাদেশে দ্বিতীয়টি নেই।আযানের সময় হলে নামায শেষ না হওয়া পযন্ত,নিয়ম করে মন্দিরে পূজা আর্চনা বন্ধ থাকে,নামায শেষ হলেই যথারীতি পূজা আর্চনা আড়তী ঠাকুর নাম যপ শুরু হয়।শতাব্দী ধরে এভাবেই চলে আসছে দুই ধর্মের পাশাপাশি দুই উপসানালয়।কোথাও সংখ্যালঘুদের উপর নির্যাতন হামলা সহ নানা ঘটনা ঘটলেও বিন্দুমাত্র আঁচ পড়েনি কখনো এখানে।তাই দুর দুরান্ত থেকে অনেকে দেখতে আসেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির এই তীর্থ স্থানটি।

পুরান বাজার মসজিদের নিয়মিত মুসল্লি গোলাম নবী বাবু দাবী করেন,সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার অনন্য নজির হিসেবে এখানে দৃষ্টি নন্দন মসজিদ এবং মন্দির তৈরী করে পর্যটন মন্ত্রনালয়ের ভুক্ত করা হোক। সারা দেশ থেকে মানুষ মসজিদ মন্দির পাশাপাশি রয়েছে এটি দেখতে আসবে এবং শিক্ষা গ্রহন করতে পারবে।

কালিবাড়ী দূর্গামন্দিরের নিয়মিত পূন্যার্থী স্বপন সাহা বলেন আমাদের পুর্ব পুরুষ থেকে এই মন্দিরে ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান করে আসছি,কখনো মসজিদের মুসল্লী কিংবা মসজিদ কমিটির সাথে মন্দির কমিটির টু শব্দ শুনিনি।কোন সমস্যা হলে মন্দির এবং মসজিদ কমিটি হৃদ্যতা পূর্ন সম্পর্কের মধ্যে আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করা হয়েছে।

পুরানবাজার মসজিদের নিয়মিত মুসল্লী এবং মসজিদ মন্দিরের নিকটস্থ বাসিন্দা প্রবীণ হৈতষী সংগঠনের সদস্য ইউনুস শিকদার জানান, জনশ্রুতি রয়েছে বাংলা ১৩০২ ইংরেজী ১৮৯৫ সালে এই স্থানে কালিমন্দির গড়ে উঠে সে অনুসারে এই জনপদ কে কালিবাড়ী এলাকা হিসেবে মানুষ জানতো,পরবর্তীতে এই কালী মন্দিরটি দূর্গা মন্দির হিসেবে পরিচিতি পায়।এর কিছুকাল পরে ১৩০৭বঙ্গাব্দ ইংরেজী ১৯০০সালে মন্দিরের পাশেই একটি নামায ঘর গড়ে উঠে,পরবর্তীতে এটি পূর্নাঙ্গ মসজিদ হিসেবে রূপ পায়।স্থানীয়রা এটি কালিবাড়ী মসজিদ ও পুরানবাজার মসজিদ হিসেবে চেনেন। শতাব্দীর প্রাচীন এই মন্দির মসজিদ ঘিরে মানুষের কৌতুহল অনেক, তাই প্রতিবছর দুর্গাৎসবে দুর দুরান্ত থেকে লোকজন দেখতে আসেন উৎসব কালীন মসজিদ মন্দিরের আবহ কেমন থাকে তা দেখতে।

কালিবাড়ী দুর্গামন্দিরের পুরোহিত শ্রী শংকর ঠাকুর জানান সকালে দেবীর অকাল বোধন,আমন্ত্রন,অধিবাস এর মধ্য দিয়ে ষষ্ঠিপূজা শুরু হয়।উৎসবের দ্বিতীয় দিন রোববার মহাসপ্তমীর পুজা অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৬’৩০মি সোমবার মহাঅষ্টমীর পুজা অনুষ্ঠিত হবে সকাল ০৯টায় বেলা ১১টায় কুমারী পুজা অনুষ্ঠিত হবে।বিকাল ৪’টায় সন্ধি পূজা অনুষ্ঠিত হবে,মঙ্গলবার সকাল ৬’৩০মিনিটে শুরু হবে নবমী পুজা,সকাল ১০টায় পুস্পাঞ্জলি,সন্ধ্যায় আড়তি,বুধবার সকালে দশমী পুজা,সকালে পুস্পাঞ্জলি, এরপর সমর্পন,দর্পন,বিসর্জন পুজা শেষে দেবী মাকে সিদুর পড়ানো,বিকেলে দেবী মাকে বিসর্জন শেষে সন্ধ্যায় শান্তি জল গ্রহনের মধ্যদিয়ে দুর্গাৎসব শেষ হবে।

এবছর লালমনিরহাট জেলায় ৪৪৯টি দুর্গা মন্দিরে দুর্গাৎসব অনুষ্ঠিত হবে,প্রতিটি মন্দির নিরাপত্তার জন্য সিসিটিভির আওতায় আনা হয়েছে।আইন শৃঙ্খলা বাহিনী প্রতিটি মন্দির ঘিরে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যাবস্থা গ্রহন করেছে।লালমনিরহাট সদর উপজেলায় এবছর ০১শত ৫৪টি মন্দিরে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে,এর মধ্যে৷ লালমনিরহাট পৌরসভায় ২৬টি মন্দিরে দুর্গাৎসব মহা ধুম ধামে শুরু হয়েছে।আগামী বুধবার দেবী বিসর্জনের মধ্যদিয়ে দুর্গাৎসব শেষ হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Copyright © All Right Reserved 2020 আমার দেশ প্রতিদিন
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )