1. admin@amardeshpbd.com : amardesh :
  2. sumarubelp@gmail.com : suma :
যশোরের কেশবপুরের কালোমুখো হনুমানের দল এখন মণিরামপুরে দখল নিয়েছে, অতিষ্ঠ এলাকার সাধারন মানুষ। - আমার দেশ প্রতিদিন
December 5, 2022, 1:53 pm
ব্রেকিং নিউজ:
গাবতলী নেপালতলী ইউপি চেয়ারম্যান বাবুর বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতির অভিযোগ বগুড়ায় জেলা যুবলীগের উদ্যোগে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল চুনারুঘাটে ৪ কোটি ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ২ টি ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন বিমান প্রতিমন্ত্রী-এড.মাহবুব আলী সাংবাদিক ফারুক হোসেনর মৃত্যুতে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব লালমনিরহাটের গভীর শোক প্রকাশ পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে কাপ্তাই সেনা জোনের উদ্যোগে গরিব ও দুস্থ্যদের মাঝে চিকিৎসা সেবা প্রদান বগুড়ায় ছুরিকাঘাতে আহত মেডিকেল ছাত্র অবশেষে নিহত কাপ্তাইয়ে প্রতিবন্ধী দিবসে শিশুদের নিয়ে আনন্দ আয়োজন পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে ২৭৪ জন গরিব দুস্থ্যদের মাঝে চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করেছেন কাপ্তাই সেনা জোন নরসিংদীর রায়পুরায় ইউপি চেয়ারম্যান জাফর ইকবাল মানিককে গুলি করে হত্যা হিরোইনসহ মাদক কারবারি গ্রেফতার

যশোরের কেশবপুরের কালোমুখো হনুমানের দল এখন মণিরামপুরে দখল নিয়েছে, অতিষ্ঠ এলাকার সাধারন মানুষ।

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, এপ্রিল ৫, ২০২২,
  • 61 Time View

হাফিজুর শেখ মনিরামপুর যশোর জেলা প্রতিনিধিঃমণিরামপুরে খাবারের সন্ধানে যশোরের কেশবপুরের কালোমুখো হনুমানের দল এখন মণিরামপুরে। গেলো ২ মাস ধরে ছোটবড় অন্তত ২০টি হনুমান দলবেঁধে উপজেলার শ্যামকুড় এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে।স্থানীয়রা সাধ্যমত তাদের খাবারের ব্যবস্থা করলেও হনুমানের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠছেন তারা। হনুমান বাড়িতে বা সবজি খেতে ঢুকে উৎপাত চালাচ্ছে।গত সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হনুমানের দল আসে শ্যামকুড়ের যমযমিয়া দাখিল মাদরাসায়। প্রথমে তারা মাদরাসার প্রাচীরে অবস্থান নেয়। পরে খাবার খুঁজতে শ্রেণি কক্ষে ঢুকে পড়ে।কালামুখো হনুমানের আদিবাস যশোরের কেশবপুরে। সেখানে তাদের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য সরকারিভাবে ব্যবস্থা রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে সরকারি খরচে নিয়মিত হনুমানের খাবারের ব্যবস্থা থাকলেও তা সঠিকভাবে বিতরণ করা হয় না। ফলে খাবারের খোঁজে বছরের অধিকাংশ সময় হনুমানের দল মণিরামপুরসহ আশপাশের এলাকায় ঢুকে পড়ে।যমযমিয়া দাখিল মাদরাসার শিক্ষক আনিছুর রহমান বলেন, প্রায়ই হনুমানের দল মাদরাসায় ঘোরাঘুরি করে। এবারই সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ২০টি হনুমান একসাথে এসেছে। শিক্ষার্থীরা ওদের খাবার দিয়েছে। আরো খাবারের আশায় ওরা শ্রেণিকক্ষে ঢুকে পড়ে। পরে হনুমান তাড়িয়ে দিয়ে ক্লাস করাতে হয়েছে।এ শিক্ষক বলেন, গত দুই মাস ধরে হনুমাদের দল এ অঞ্চলে আছে। রাতের বেলায় ওরা গাছে থাকে। সকাল হলে গ্রামে ছড়িয়ে পড়ে।মণিরামপুর কেশবপুর অঞ্চলে দায়িত্বপ্রাপ্ত বন কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফা বলেন, খাবারের খোঁজ না অভ্যাসগত কারণে হনুমানগুলো আশপাশের এলাকায় বিচরণ করে।তিনি বলেন, কেশবপুরে ছোটবড় অন্তত ৩৫০টি হনুমান রয়েছে

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Copyright © All Right Reserved 2020 আমার দেশ প্রতিদিন
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )