1. admin@amardeshpbd.com : amardesh :
  2. sumarubelp@gmail.com : suma :
মানিকগঞ্জে টেন্ডার ছাড়াই পুরাতন ব্রীজ বিক্রীর - আমার দেশ প্রতিদিন
December 5, 2022, 2:32 pm
ব্রেকিং নিউজ:
রাবেয়া ক্লিনিকে রোগীকে ভুল অপারেশন করায় ডুমুরিয়া থানায় অভিযোগ, ভুক্তভোগীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিচ্ছে ডাক্তার হাসান লালমনিরহাটে বন্ধ রাস্তা চালুর দাবীতে গ্রামবাসীদের মানববন্ধন আজ নাটোরে পালিত হলো বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস ডুমুরিয়ায় শিশু কন্যাকে যৌন হয়রানির অভিযোগে মন্টু মোল্যাকে আটক করেছে থানা পুলিশ ডুমুরিয়ার চুকনগরে এক সপ্তাহের ব্যাবধানে ৫টি দুঃসাহসিক চুরি সংঘটিত হয়েছে ফলে চুরি নিয়ে শঙ্কিত রয়েছে সাধারণ মানুষ গাবতলী নেপালতলী ইউপি চেয়ারম্যান বাবুর বিরুদ্ধে অনিয়ম-দূর্নীতির অভিযোগ বগুড়ায় জেলা যুবলীগের উদ্যোগে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল চুনারুঘাটে ৪ কোটি ৩২ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ২ টি ব্রিজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন বিমান প্রতিমন্ত্রী-এড.মাহবুব আলী সাংবাদিক ফারুক হোসেনর মৃত্যুতে বাংলাদেশ প্রেসক্লাব লালমনিরহাটের গভীর শোক প্রকাশ পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে কাপ্তাই সেনা জোনের উদ্যোগে গরিব ও দুস্থ্যদের মাঝে চিকিৎসা সেবা প্রদান

মানিকগঞ্জে টেন্ডার ছাড়াই পুরাতন ব্রীজ বিক্রীর

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, অক্টোবর ১১, ২০২২,
  • 75 Time View

মুরাদ খান মানিকগঞ্জ থেকে

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া উপজেলায় টেন্ডার ছাড়াই পুরাতন অকেজো ব্রীজ বিক্রীর টাকা আতসাতের অভিযোগ উঠেছে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বিরুদ্ধে।
জানা যায়, উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে গত ২০২১-২০২২ ইং অর্থ বছরে গ্রামীণ রাস্তায় মোট ৮টি ১৫ মিটার দৈর্ঘের নতুন কালভাট ও ব্রীজ নির্মাণের প্রকল্প বরাদ্দ পায় প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা। নতুন ৮টি ব্রীজ স্থাপনের জায়গায় ৫ টি ব্রীজ ও কালভাট ছিল পুরাতন সরকারি আইন ছিল পুরাতন ব্রীজগুলো টেন্ডার দেয়া। কিন্তু তিনি নিয়ম-নীতির কোন তোয়াক্কা না করে প্রশাসনকে বৃদ্ধাংগুলি দেখিয়ে তার অফিসে থাকা দালাল সাইফুল ইসলামের যোগসাজশে ওই ৫টি পুরাতন ব্রীজ একক সিদ্ধান্তে বিক্রী করে নিজেদের পকেট ভারী করেছেন বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে।
পুরাতন ব্রীজগুলি হচ্ছে বালিয়াটি ইউপির চরপাড়া আলেক নদীর শাখা খালের উপর ১টি, দরগ্রাম ইউপির তেবারিয়া-দরগ্রাম রাস্তার উপর ১টি, বরাইদ ইউপির ছনকা মাদব খালের উপর ১টি, ধানকোড়া ইউপির কান্দাপাড়া জসিম উদ্দিনের দোকানের পাশে খালের উপরে ১টি ও সাটুরিয়া ইউপির মালশী-গওলা রাস্তার উপর ১টি।
পিআইওর একক সিদ্ধান্তে ব্রীজ বিক্রীর সমুদয় অর্থ আতসাতের বিষয়টি এলাকায় আলোচনা-সমালোচনার ঝড় বইতে থাকলে মিডিয়াকর্মী বৃন্দ সত্য প্রমাণে মাঠে নামলে পিআইও এবং দালাল সাইফুল এর বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম ও দূর্নীতির শতভাগ সত্যতা খোঁজে পাওয়া যায়।
এ বিষয়ে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার নিকট সংশ্লিষ্ট প্রতিবেদক তথ্য অধিকার আইনে তথ্য চাইলে সময়মত তথ্য না দিয়ে কালক্ষেপণ করে। তিনি তথ্য না দিয়ে অফিসের দালাল সাইফুলকে দিয়ে বারংবার মিডিয়াকর্মীকে অর্থের লোভ দেখিয়ে অভিযোগগুলি মিমাংসার জন্যে চেষ্টা চালান। একপর্যায়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আঃ মজিদ ফটোর নির্দেশে তথ্য অধিকার আইন অমান্য করে ভাঙ্গা ব্রীজেরটি তথ্য দিলেন ৬৩ দিন পর ৪ ঠা আগস্ট এবং অপরদিকে ২০২১-২২ ইং অর্থ বছরের সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পের তথ্যটি দিলেন প্রায় ৪ মাস পর।
ভাঙ্গা ব্রীজের মালামাল বিক্রয়ের পর সাংবাদিকদের ম্যনেচ করতে ব্যার্থ হলে তিনি এ বিষয়ে গত ২৮ জুলাই সভাকক্ষে সভা ডেকে রেজোলেশনের মাধ্যমে পুরাতন অকেজো ৫টি ব্রীজের মালামাল সংরক্ষিত আছে ও নিলামে তা টেন্ডার দিয়ে বিক্রি করে টাকা সরকারি খাতে জমা করা হবে বলে উল্লেখ করে । অথচ পুরাতন ব্রীজের মালামাল মে মাসের প্রথম দিকেই জনৈক ২ জন ভাঙ্গারির নিকট মোটা অংকের টাকায় বিক্রী করে দুর্নীতিবাজ দালাল সাইফুল ও পি আই ও। বিষয়টি উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটোর নজরে আসলে তার চাপে পড়ে তিনি একক সিদ্ধান্তে গত ১৭ আগস্ট ৫টি ব্রীজের বিক্রয় মূল্য নামমাত্র ৬১ হাজার ১২০ টাকা নির্ধারণ করে। তার উপর ৭.৫% ভ্যাট বাবদ ৪ হাজার ৫৮৫ টাকা ও ১০% আয়কর বাবদ ৬ হাজার ১১২ টাকাসহ সর্বমোট ৭১ হাজার ৮১৭ টাকা গত ১৭ আগস্ট সরকারি কোষাগারে সাটুরিয়া সোনালী ব্যাংক শাখায় জমা দিয়ে নিজেকে তুলসি পাতা সাজিয়ে পার পেলেন পিআইও রবিউল ইসলাম । অথচ রেজুলেশনে কোন তারিখে কবে কোথায়, কত টাকায়,কে টেন্ডার নিলাম ডেকে ওই ভাঙ্গা ব্রীজের মালামালগুলি খরিদ করে নোটিশে তার কোন কিছুই উল্লেখ করা হয়নি। স্থানীয় প্রশাসন পিআইও এর দূর্নীতি ও কু-কর্মের বিচার না করে শুধু তাকে গালমন্দেও মাধ্যমে তিরস্কার করে তার জঘন্নতম অন্যায় অপরাধ ও অপকর্মকে ধামা চাপা দিয়ে এ দূর্নীতিবাজ ও ঘুষখোর পিআইওকে বাঁচানোর জন্যেই এ রকম উদ্যোগ নিয়েছে বলে জানান সচেতন এলাকাবাসী ও সুশীল সমাজের অভিজ্ঞ মহল।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে জনৈক ক্রেতা বলেন যে, আমি ৩টি ভাঙ্গা ব্রীজের মালগুলি গত মে মাসের প্রথমেই ১ লক্ষ ৮৭ হাজার টাকায় খরিদ করে তা বিক্রি করেছি। তিনি আরো বলেন যে, অন্য ভাঙ্গা ৩টি ব্রীজের মাল দৌলতপুরের অপর ভাঙ্গারির কাছে সে বিক্রয় করেছে।
অপর দিকে নির্মিত নতুন ৮টি ব্রীজের নির্মাণ কাজগুলি নানা দূর্নীতি ও অনিয়মসহ নিম্ন মানের সামগ্রী দিয়ে কাজ করার অভিযোগ উঠেছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সংশ্লিষ্টরা জানান, সঠিক নিয়মে যদি পুরাতন ব্রীজ গুলো টেন্ডার দিয়ে বিক্রী করা হত তাহলে সর্বনি ৪ লক্ষ টাকা বিক্রী করা যেত। উর্দ্ধতন কতৃপক্ষের কোন নজরদারী না থাকায় অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে ব্রীজগুলো বিক্রী করায় সরকার হারিয়েছে রাজস্ব।
নাম না বলা শর্তে প্রশাসনের প্রায় ডর্জন খানেক ব্যক্তিবর্গ বলেন, সাইফুল ইসলামের পিআইও অফিসে সরকারি কোন নিয়োগ না থাকলেও অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীর মত পি ই ওকে মটর সাইকেলে নিয়ে ঘুরে বেড়ান।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ রবিউল ইসলাম বলেন, আমরা নিয়ম মেনে রেজুলেশনের মাধ্যমে পুরাতন অকেজো ব্রীজগুলো বিক্রী করেছি। এ বিষয়ে আপনার তথ্যের প্রয়োজন হলে তথ্য অধিকার আইনে আবেদন করলে আমি তথ্য দিয়ে দিব।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আরা বলেন, অনিয়ম করে পুরাতন ব্রীজ বিক্রী করার কোন সুযোগ নেই। অফিসিয়াল নিয়ম মেনেই টেন্ডারের মাধ্যমে পুরাতন ব্রীজ বিক্রী করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
Copyright © All Right Reserved 2020 আমার দেশ প্রতিদিন
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )